Ithelpbd.com is Bangla Online Tech Community website.

বিট কয়েন আয় উত্তোলনে সেরা কয়েকটি ওয়ালেট সম্পর্কে পরিচিত হই! টিপস হিসাবে থাকছে কোনটি আপনার জন্য নিরাপদ ও সাশ্রয়ী!!

262 views
if you like please share this postShare on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0
সবাইকে সালাম ও শুভেচ্ছা জানিয়ে শুরু করছি আজকের দিনের টিউন। আজকের আলোচ্য বিষয় হিসাবে থাকবে আপনার বিট কয়েন আয় উত্তোলন করার জন্য কোন প্লাফফরমটি ব্যবহার করবেন।
 এর মধ্য টিউটোরিয়াল অনুযায়ী অনেকেই কাজগুলো করতে পেরেছেন ও করছেন। হাল সময়ে অনেকের অভিযোগ শুনছি যে, ব্রাদার বিট কয়েন ওয়ালেট হিসাবে কোনটি ব্যবহার করব কিংবা কোনটির সুবিধা/অসুবিধা আছে। এবার সংক্ষেপে আলোচনা করি আপনাদের বুজবার সুবিধার্থে-

বিট কয়েন ওয়ালেট কি?

বিট কয়েন ওয়ালেট হল এমন একটি ট্রানজেকশন পদ্ধতি যেখানে বিটিসি আয় করছেন সেটিকে উত্তোলন করতে কিংবা কোথাও লেনদেন করতে যে ২য় পক্ষের প্রয়োজন হয় সেটিই হল ওয়ালেট। উদাহরন হিসাবে বলি যেমনঃ আপনি ফ্রিবিটকো ইন সাইট হতে আয় করছেন এবং সেটি ওয়ালেট হিসাবে ব্যবহার করছেন কয়েনবেইজ সাইট। এবং কয়েনবেইজ সাইট হতে প্রয়োজনের তাগিদে বিটিসি গুলো প্রেরন ও গ্রহন করছেন। যারা এই পূর্ব হতে এই দুটি বিষয়ের সাথে রিলেটেড হিসাবে কাজ করছেন তারাই সুবিধাটা বুঝতে পেরেছেন।

বিভিন্ন প্রকার বিটিসি ওয়ালেটের সাথে পরিচয়

বর্তমানে বিটিসি ওয়ালেট হিসাবে ২০ টির মত এক্সচেঞ্জ রয়েছে। অবশ্য আপনাদের কাছে সবচেয়ে বেশী পরিচিত হল কয়েনবেইজ। অবশ্য এটি ছাড়াও বেশ কিছু ওয়ালেট সাইট গুলো হলঃ

সংক্ষেপে আলোচনা

কয়েনবেজ সাইটের পর বহুল প্রচলিত দুটি সাইট হলঃ Blockcahin & Xapo
  • Blockcahin

যুক্তরাজ্য ও অসলো ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ব্লকচেইন একটি জনপ্রিয় ওয়ালেট। এই সাইটের পার ভিজিটর প্রায় ২১০,০০০ জন, এলেক্সা র‌্যাংক ১৬১৯। সিকিউরিটি ও হ্যাকার প্রটেকশনের দিক হতে এটির নিরাপত্তা বলয় অধিক শক্তিশালী। মূলত এখানে লগইন করতে গেলে আপনাকে ৩ টি ধাপ পার করতে হয়। এখান হতে যে কোন ট্রানজেকশন বাই/সেল করতে পারবেন। এবং প্রয়োজনে উইথড্র করা যাবে। মূলত একটি ইমেইল ঠিকানাতে একাধিক বিট কয়েন ঠিকানা ওপেন করা যায়। তথাপি আপনার যদি মোবাইল এলার্ট চালু থাকে তাহলে প্রতি নিয়তই মোবাইলে জানতে পারবেন কত আয় করছেন!
 

 অসুবিধাঃ

এই সাইটের অসুবিধার মধ্য অন্যতম হল আপনি যদি আপনার পাসওয়ার্ড ভূলে যান তাহলে কখনো রিকভার করার সুযোগ পাবেন না। কিংবা এডমিনকে জানালে সহায়তা করতে পারবেনা (সাইট অনুযায়ী)। এই জন্য তাদের পরামর্শ হল আপনার পাসওয়ার্ড ও রিকভার শব্দ কোথাও লিখে রাখা কিংবা প্রিন্ট করা। এই সাইট ব্যাকআপ হিসাবে আপনাকে প্রায় ১২ টি শব্দ দিবে। এই শব্দদ্বয় আপনাকে সেইভ করে রাখতে হবে। তথাপি অারেকটি সমস্যা হল এর লেনদেন রেট অনেক বেশী। যেমনঃ প্রায় ১০ ডলার কোথাও সেন্ড করলে ২.৫৫ ডলার ফি কেটে রাখে। সুতরাং বর্তমানে এই ওয়ালেটটি ব্যবহার বন্ধ রেখেছি।
 এটি আমার ২য় পচ্ছন্দ। এর নিরাপত্তা বলয়ও যথেষ্ট ভাল। এবং ব্যবহার বিধি সবচেয়ে সহজ। কারন আপনার মোবাইল নম্বরটি এখানে পাসওয়ার্ড হিসাবে কাজ করে। তথাপি Blockcahin সাইট হতেও এর চার্জ ফি কিছুটা হলেও কম। ২য় পচ্ছন্দ হিসাবে আপনারা এটি ব্যবহার করতে পারেন। এই সাইটের পার ভিজিটর প্রায় ৪০,০০০ মত। এটি একটি কানাডা ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান।
  • Coinbase

এটি অামার পচ্ছন্দের শীর্ষে এবং নতুন করে আলোচনা করার প্রয়োজন নাই।এটি একটি ইউএসএ ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান। এই সাইটের পার ভিজিটর প্রায় ২১০,০০০ জন, এলেক্সা র‌্যাংক ১৬৫০। এটির নিরাপত্তা বলয় অধিক শক্তিশালী। তথাপি পাসওয়ার্ড ভূলে গেলেও একাউন্ট সহজেই রিকভার করা যায়।
আরেকটি বিষয় হল এখানে আপনার ওয়ালেট ঠিকানাকে আপনার ওয়বসাইট অনুযায়ী সাব ডোমেইনে ব্যবহার করতে পারবেন। এই সাইটকে আমি সবচেয়ে বেশী ভালবাসি তার অন্যতম কারন হচ্ছে অন্য যে কোন সাইট হতে চার্জ ফি অনেক কম। এই যেমন গতকালকে প্রায় ১১ ডলারের লেনদেন করতে গিয়ে ফি কেটেছে ০.৮৬ ডলারের মত।
তাছাড়া এখানে আপনার সমস্ত দিনের লেনদেনের একটি তালিকা যুক্ত হতে থাকে। যেখান হতে ৩ বছরেরও কার্যাদি বাহির করতে পারবেন। কিভাবে কয়েনবেইজ সাইট ব্যবহার ও ঠিকানা ওপেন করতে হয় আমার প্রকাশিত এই টিউন দেখুন এখানে

পরামর্শ ও সার কথা

 উপরোক্ত আলোচনার প্রেক্ষিতে বুঝতে পেরেছেন ওয়ালেটের তাৎপর্য। পরীক্ষা কিংবা শখের বসে আপনারা যে কোন ওয়ালেট ব্যবহার করতে পারেন। তবে আমার অভিজ্ঞতাতে সবচেয়ে ভাল দেখা ওয়ালেট হল কয়েনবেইজ ওয়ালেট। যদিও বেশ কয়েকটি ওয়ালেট এখনো সচল আছে কিন্তু চার্জ ফি ও রিকভারি সুবিধা থাকর কারনে কয়েনবেইজ ওয়ালেট আমার শীর্ষে। 
আপনার মন্তব্য আমাদের কাছে খুবই গুরুত্বপূন । তাই আপনার মতামত দিন !!

if you like please share this postShare on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0