মাত্র ১ টাকায় বানিয়ে নিন পকেট চুলা !!! দেখুন অসাধারন মজা পাবেন… (ভিডিও সহ) ! | ithelpbd.com
Ithelpbd.com is Bangla Online Tech Community website.

মাত্র ১ টাকায় বানিয়ে নিন পকেট চুলা !!! দেখুন অসাধারন মজা পাবেন… (ভিডিও সহ) !

127 views
if you like please share this postShare on Facebook
Facebook
0Share on Google+
Google+
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
অনেকে হয়তো খেয়াল করবেন বর্তমানে যারা হাইকিং এবং ক্যাম্পিং এর মত আউট ডোর স্পোর্ট গুলা করে তারা নিজেদের খাবার দাবার নিজেরাই রান্না করে। কেউ হয়তো শুকনো কাঠ পুড়িয়ে কেউ কেউ ছোট্ট পকেট সাইজের চুলা দিয়ে। বাংলাদেশেরই অনেক হাইকার এবং ক্যাম্পার এ চুলা অনেকদিন ধরে ব্যাবহার করে আসছে।আর এ চুলাটা এখন অনেক জনপ্রিয়তা পাচ্ছে এর ছোট সাইজ আর হালকা ওজনের জন্য। এটি নিজে নিজেই বানানো যায়। আজ এ পোস্ট আমি শেখানোর চেস্টা করবো কিভাবে এটা আপনি বানাতে পারবেন।
ddd
প্রথমে যা যা লাগবে।
১/ দুটা সোডা / কোক বা বিয়ারের খালি  ক্যান।
২/ একটা সিজর বা কেচি।
৩/ একটা রঙ্গিন মার্কার।
৪/ একটা প্লায়ার্স।
৫/ কাগজ লাগানোর জন্য নোটিশ বোর্ডে ব্যাবহার করার একটা পিন। ক্লিপ বোর্ড পিন।
৬/ সিরিজ কাগজ। লোহার জং ঝরানোরটা।
কিভাবে বানাবেন:-
প্রথমে খালি ক্যান দুটি পানি দিয়ে ভাল করে পরিস্কার করে ফেলুন। খালি না থাকলে দ্রুত খেয়ে খালি করে ফেলুন :P ।
ছবি:- খালি ক্যান পরিস্কার করা হচ্ছে।
ছবি:- খালি ক্যান পরিস্কার করা হচ্ছে।
ddd
 এর পর ক্যান দুটি মার্কর দিয়ে মার্ক করতে হবে ঠিক যেখানে কাটতে চান। সাধারণত ক্যানের নিচের অংশের ৩.৫ মিলিমিটার বা ১.৫ ইন্চি কাটা হয়। কিন্তু আমি ওতো মাপটাপ দিতে পারিনা বাপু। আমি করি কি একটা কস্টেপ/সাদা টেপের উপর মার্কারটা চেপে ধরে মার্কারের মাথার সাথে ক্যানটা লাগিয়ে ঘুরাই। ফলে ক্যানের মধ্যে একটা দাগ পড়ে সমান ভাবে। এভাবে দুটা কেনেই একি ম্যাপে দাগ দেওয়া হয়।
ছবি:- ক্যানে এভাবেই দ্যাগ দিতে হবে।
ছবি:- ক্যানে এভাবেই দ্যাগ দিতে হবে।
ছবি:- দুটাতেই দাগ দেওয়া হয়ে গেল।
ছবি:- দুটাতেই দাগ দেওয়া হয়ে গেল।
এখন দাগ বরাবর কেটে ফলতে হবে। এ কাজটা একটু সাবধানে করতে হবে। যেন দাগ বরাবর সমান কাটা হয়। বাকা বা অসমান কাটা হলে এটি একটার সাথে অন্যটা পরে ঢুকাতে কষ্ট হবে। নষ্টও হয়ে যেতে পারে। সিজর বা ক্যাচি দিয়ে সমান ভাবে কেটে ফেলুন। চিকন সিজর বা কেচি হলে ভাল হয়। আমি এই পোস্টে সিম্পল স্টোভটা বানাবার টিউটোরিয়াল দিচ্ছি। তাই চুলাটা একেবারে সাধারণটা। এটার ভেতরে কোন রিং বা স্পন্জ দেবনা। তাই ক্যানের একটু উপর থেকে কাটা শুরু করলাম। যাতে কাটা সহজ হয়। যদি সিম্পলটা না বানাতাম তবে এত ওপর থেকে কাটতাম না। কারণ ওই অংশটা মাঝখানে রিং হিসাবে ব্যাবহার করতাম। নিচের ছবি দেখুন :-
ছবি:- এভাবে একটু উপর থেকে কাটলে সমান ভাবে কাটতে পারবেন।
ছবি:- এভাবে একটু উপর থেকে কাটলে সমান ভাবে কাটতে পারবেন।
ছবি:- এভাবে সমান করে কেটে ফেলুন।
ছবি:- এভাবে সমান করে কেটে ফেলুন।
ddd
এরপর একটা প্লায়ার্স দিয়ে যে ক্যানের কাটা অংশটাকে আপনি উপরে রাখবেন এবং ফুটো করবেন সেটাকে হালকা ভাবে নিচরে কাটার দিকটা মুচড়ে নিতে পারনে। নিচের ছবির মত। এতে অন্য কাটা অংশটায় সহজে ঢুকাতে পারবেন। একটা ক্যান অন্যটার উপর বসিয়ে একটা কাপড় দিয়ে ধরে আস্তে আস্তে করে চেপে একটাকে ওন্যটার উপর ঢুকিয়ে দিন।
ছবি:- এভাবে।
ছবি:- এভাবে।
ছবি:- চেপে চেপে একটার ভেতর অন্যটা ঢুকিয়ে দেওয়া হলো।
ছবি:- চেপে চেপে একটার ভেতর অন্যটা ঢুকিয়ে দেওয়া হলো।
ddd
চুলা বানাননো প্রায় শেষ। এখন পেপার পিন / ক্লিপ বোর্ড পিন দিয়ে ছিদ্র করে নিন। ছিদ্র আপনি যদি চান আস্তে আস্তে খাবার না পুড়িয়ে রান্না করতে তাহলে অল্প মাত্র ৯টা করলেই হবে। আর টপ বা ফুয়েল দেয়ার জন্য মাঝখানে ৩টা।  কিন্তু যদি চান বেশি তাপ। এবং দ্রুত রান্না। তাহলে বেশি ছিদ্র করতে পারেন। ছিদ্র করার সময় অবশ্যই একটা ছিদ্র হতে অন্য ছিদ্রটার দুরত্ব যেন সমান হয়। এটা ইম্পটেন্ট। এজন্য আপনি চাইলে ছিদ্র করার আগে একটা মার্কার দিয়ে মার্ক করে তার পর ছিদ্র করুন।
 ছবি:- ক্লিপ বোর্ড পিন।
 ছবি:- ক্লিপ বোর্ড পিন।
এরপর আমি যেটা করি সেটা হলো সিরিজ কাগজ দিয়ে ঘষে ঘষে এর রং তুলে একে সিলভার কালার করে ফেলি। এটা আসোলে স্টোভটাকে সুন্দর করার স্টেপ। নিচের ছবিতে নিশ্চয় দেখতে পাচ্ছেন কিভাবে চুলাটার ফুটো করা হয়েছে ? একটা থেকে অন্যটার দুরত্ব সমান। আর সিরিজ কাগজ দিয়ে এই সিলভার কালারটা করা না করা আপনার ইচ্ছে।
ddd
ছবি:- পুর্ণ চূলা । ঘষা মাজার পর।
ছবি:- পুর্ণ চূলা । ঘষা মাজার পর।
এখন চুলা বানানো শেষ। এটাকে ধরাবেন কি দিয়ে ? ফুয়েল হিসাবে ব্যাবহার করতে পারেন স্প্রিট যেটা কাঠের বার্ণিসে আসবাবে ব্যাবহার করা হয়। এছাড়া মোবাইলের মাদারবোর্ড পরিস্কার করার জন্য মেকানিক রা যে থিনার ব্যাবহার করে ওটাও ব্যাবহার করতে পারেন। ফুয়েলের ব্যাপারে বিস্তারিত নিচের নোটে লিখা হলো। তো প্রথমে স্টোভটাকে এমন স্থান রাখুন যেখানে অন্য কিছুতে আগুন ধরার চান্স নেই। তার পর পরিমান মত বা স্টোভের পুর্ণ করে ফুয়েল ( স্প্রিট / থিনার ) ভেতরে দিন। এরপর একটা কয়েন দিয়ে ছিদ্র গুলা বন্ধ করে আরেকটু ফুয়েল দিয়ে আশ পাশে একটু ছড়িয়ে দিয়ে আগুন দিন। ধরে যাবে। প্রথম বার না হলে আবার একি স্টেপে ট্রাই করুন। নিচের ছবি গুলা দেখুন।
ছবি:- এভাবে ফুয়েল দিন।
ছবি:- এভাবে ফুয়েল দিন।
ছবি:- কয়েন দিয়ে ফুয়েল একটু ছড়িয়ে দিন।
ছবি:- কয়েন দিয়ে ফুয়েল একটু ছড়িয়ে দিন।
ddd
ছবি:- দুর থেকে আগুন দিন।
ছবি:- দুর থেকে আগুন দিন।
ছবি:- সরি ফুয়েল একটু বেশি ছড়িয়ে গেছে।
ছবি:- সরি ফুয়েল একটু বেশি ছড়িয়ে গেছে।
ছবি:- ধরে গেল আপনার গ্যাসের চুলা। যেটা পকেটে নিয়ে ঘুরতে পারবেন।
ছবি:- ধরে গেল আপনার গ্যাসের চুলা। যেটা পকেটে নিয়ে ঘুরতে পারবেন।
ছবি:- আধারে।
ছবি:- আধারে।
ddd
ছবি:-  রান্না চলছে।
ছবি:-  রান্না চলছে।
ddd
হয়ে গেছে বানানো ? এবার বলুন কিভাবে পাতিল এর উপর বসাবেন ? নিজে নিজে একটা পট স্টেন্ড এবং ওয়াইন্ড স্ক্রিন বানিয়ে ফেলুন। জংগলে বা পাহাড়ে গেলে আপনি পাথর বা ভজা কাচা গাছ ব্যাবহার করতে পারেন। (তাই বলে আবার দা দিয়ে একটা ভাল গাছ কেটে ফেলবেননা। নেচারে রান্না করতে গিয়ে নেচার নষ্ট করার মানে হয়না। ) সাধারণত নিচের স্ট্যান্ডটাই ব্যাবহার করলে ভাল হয় ।

চলুন এবার নিচের ভিডিওটি দেখি…

 

আপনার মন্তব্য আমাদের কাছে খুবই গুরুত্বপূন । তাই আপনার মতামত দিন !!

if you like please share this postShare on Facebook
Facebook
0Share on Google+
Google+
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin