Ithelpbd.com is Bangla Online Tech Community website.

প্রতারণায় যুক্ত হলে নতুন ফাঁদ ইল্যান্সে – ইল্যান্সের নামে ছড়াচ্ছে স্ক্যাম মেইল । সাবধান ?

37 views
if you like please share this postShare on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0

প্রতারণাকারীরা সব সময় তৎপর থাকে কি করে মানুষের বিশ্বাসকে কাজে লাগিয়ে প্রতারণা করা যায়। আর তারই ধারাবাহিকতায় এবার প্রতারণাকারীরা পেতেছে প্রতারণার নতুন ফাঁদ – ইল্যান্সের নামে ছড়াচ্ছে স্ক্যাম মেইল; যেখানে সবাইকে জানানো হচ্ছে যে ইল্যান্স বিভিন্ন দেশে পার্টনার খুজঁছে এবং আপনাকে তারা পছন্দর করেছে।

বি:দ্র: কেউ যদি মনে করেন যে আমি ইল্যান্স কে স্ক্যামার বলছি, তাহলে ভূল হবে। ইল্যান্স এখন পরিক্ষিত একটি জব মার্কেট। এখানে আপনি চাইলে কাজ করতে পারেন। কিছু অসাধু বেক্তি ইল্যান্সের নাম ব্যবহার করে অসাধু কাজ করছে বলে তার সাথে ইল্যান্সের কোন জোগসাযোস আছে এমন ধরে নেওয়াটা নিতান্তই বোকামী।

বিভিন্ন সময়ই এমন মেইল ছড়িয়ে আসছে স্ক্যামকারীরা। তারা মেইলে সাধারণত জানায় যে তাদের কাছে প্রচুর টাকা আছে, এটা দিয়ে আপনার দেশে বিজনেস করতে চায়, বা আপনাকে বিজনেসের পার্টনার করতে চায় বা সে আপনার দেশে এসে থাকতে চায়। এর পর আপনি যদি রিপ্লাই দেন তাহলে বেশ কিছু মেইল চালাচালির পর আপনাকে বলবে যে কিছু টাকা তাদের ব্যাংক একাউন্ট ট্রান্সফার করতে। আর আপনি টাকা ট্রান্সফার করলেই খেলেন ধরা।

নিচের স্ক্রীণ শটটি আমার বন্ধুর কাছে আসা মেইল। যেটাতে দাবী করা হচ্ছে যে এটা ইল্যান্স থেকে পাঠিয়েছে, কিন্তু আসলে তা সত্য না। লক্ষ্য করুন, তারা অনুরোধ করেছে অন্য একটি মেইল একাউন্টে ইমেইল করতে। আরও বিস্তারিত পাবেন নিচে।

e-lance
e-lance

এই মেইলটা আমার এক বন্ধুর কাছে এসেছে

বিভিন্ন ধরণের স্ক্যাম মেইল

স্ক্যাম মেইল বিভিন্ন ধরনের হয়ে থাকে, তার মধ্যে সাধারণত এমন টাকার লোভ দেওয়া মেইল, আপনাকে বিদেশে চাকরী পাইয়ে দেবার মেইল, আপনার নামে লটারির টিকেট বেধেছে এমন মেইল থাকে। আবার এমন থাকে যে আপনার কোন বন্ধু-বান্ধবের মেইল এড্রেস হ্যাক করে আপনাকে মেইল পাঠালো যে সে কোন এক জায়গায় গিয়ে সব হারিয়েছে, এখন আপনাকে রিকোয়েষ্ট করছে কিছু টাকা পাঠিয়ে দিতে। এই সব মেইল এড্রেস আবার হ্যাক হয় এমন মেইল দ্বারা যেখানে বলা থাকে আপনার ইমেইল এড্রেসটি ডিলিট হয়ে যাবে যদি আপনি পুনরায় লগইন না করেন।

কি করে বুঝবেন এটা ভূয়া বা স্ক্যাম মেইল

স্ক্যাম মেইল গুলি ধরা বেশ সহজ, যদি আপনি একটু সতর্ক দৃষ্টি দেন, তাহলে আপনাকে আর কেউ ঠকাতে পারবে না। আসেন দেখি বিভিন্ন ধরণের স্ক্যাম মেইল কি করে বুঝতে পারবেন।

টাকা পয়সা সংক্রান্ত মেইল:

এই ধরণের মেইলে সাধারণত এরা বড় বড় কম্পানির নাম ব্যবহার করে মেইল পাঠায়। আপনাকে অনেক টাকা দিবে হ্যান দিবে ত্যান দিবে। শেষে বলে আপনকে যোগাযোগ করতে হবে অন্য একটা মেইলে; কারণ হিসাবে দেখায় গোপনীয়তা। এখানেই মূল ফাঁক। বিভিন্ন স্ক্রিপ্ট ব্যবহার করে যে কোন মেইল এড্রেস থেকে মেইল পাঠানো হয়েছে এমন দেখানো যায়, কিন্তু রিপ্লাই যদি অন্য মেইলে করতে বলে, তাহলেই বুঝে নিবেন যে সমস্যা আছে, কারণ মূল মেইলের একসেস তার নাই। আবার এরা আপনাকে এক সময় বলবে যে আপনাকে এত টাকা পাঠাবো, তাই এর চার্জ লাগবে। চার্জ আপনাকে পাঠিয়ে দিতে হবে। কেন রে বাবা? তোরা যদি এত টাকাই দিবি, তাহলে ঐ টাকা থেকে চার্জটা কেটে রাখ না!

লটারী সংক্রান্ত মেইল:

লটারী তাদেরই বাধেঁ যে লটারী কিনে। তাই লটারী না কিনেই আপনার কাছে লটারী জেতার মেইল আসা মানে হচ্ছে আপনি লটারী জিতেননি। মেইল পেয়েই খুশি হবেন না। ধৈর্য্য ধরুন, মাথা ঠান্ডা করুন, তারপর মেইলটিকে স্প্যাম বক্সে পাঠিয়ে দিন। টিকিট কিনেন নাই, তাই জিতেও লাভ নেই।

ইমেইল ডিলিট সংক্রান্ত মেইল:

আপনার কাছে যদি মেইল আসে যে আপনার ইমেইল একাউন্টটি ডিলিট করে দেওয়া হবে, যদি আপনি একটি লিংকে গিয়ে আবার লগইন না করেন। এমন মেইলের লিংকে ভূলেও ক্লিক করবেন না। ক্লিক করে লগই করলেই সাথে সাথে আপনার একাউন্টের পাসওয়ার্ড চলে যাবে তাদের মেইলে। পরে তারা আপনার পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করে যে কোন কিছু করতে পারে। এ ধরণের মেইল এবং লগইন সিষ্টেমকে বলে ফিসিং। এই সব ফিসিং সাইট দেখতে হুবহু আপনার মেইল কম্পানির সাইটের মত হবে। তবে যদি একটু কস্ট করে এড্রেসবারের পুরো এড্রেসটা পড়েন, তাহলে বুঝবেন এটা ভাওতাবাজি। বিভিন্ন সময় মেইল, পেপ্যাল, ফেসবুক, টুইটার ইত্যাদি একাউন্টের জন্য এমন সব মেইল আসে। তাই সতর্কতার সাথে এগুলি এড়িয়ে যান, এবং স্প্যামে পাঠিয়ে দিন। আপনি নিশ্চিন্ত থাকেন যে আপনার একাউন্ট ডিলিট হবে না।

আপনার সম্পর্কে আরও জানতে চায়:

কিছু কিছু মেইল আসে সেখানে তারা বলে যে আপনার প্রোফাইল তারা কোথাও দেখেছে, এবং তারা আপনার সম্পর্কে আরও জানতে আগ্রহী। কেউ কেউ আবার আরও একটু বাড়িয়ে বলে যে সে আপনার প্রমে পড়ে হাবুডুবু খাইতে শুরু করছে। সাবধান থাকবেন। এদের নাম ঠিকানা কিছুই দিবেন না। অনেকেই প্রশ্ন করে যে নাম ঠিকানা দিয়ে দিলে সমস্যা কি? এতেতো ক্ষতি নেই। আছে, ক্ষতি আছে। প্রথমে আলোচনা করা লটারী এবং টাকা পয়সা সংক্রান্ত মেইল যদি আপনার কাছে এমন ভাবে আসে যে আপনার নাম এই, ঠিকানা এই, আপনার ছবি এই ইত্যাদি ইত্যাদি, আমরা আপনাকে চিনি এবং আপনার বিষয়ে খবর নিয়েই আপনাকে টাকা দিতে চাই; তখন আপনার জন্যই সেটা অবিশ্বাস করা কঠিন হয়ে দাড়াবে। এবং আপনি তখন তাদের ফাঁদে পা দিয়ে বসলেও বসতে পারেন।

শেষ কথা

এমনে এমনে টাকা পয়সা পাবার বা বড়লোক হবার কোন সিষ্টেম পৃথিবীতে নাই, থাকলে সবাই হয়ে যেত, কেউ বাকি থাকত না। তাই কেউ এসে সেধে টাকা দিতে চাইলেই নিতে হবে এই মনোভাব থেকে বের হয়ে আসতে হবে। না হলে অদূর ভবিষ্যতে আপনি ধরা খাবেনই খাবেন।

যদি এই পোষ্টটিকে আপনার দরকারী মনে হয়, এবং মনে হয় যে আপনার আর একজন বন্ধুর উপকারে আসতে পারে, তাহলে নির্দ্বিধায় পোষ্টটি শেয়ার করুন। আপনার কোন অভিজ্ঞতা থাকলে কমেন্টের মাধ্যমে শেয়ার করুন। ধনব্যবাদ।

আপনার মন্তব্য আমাদের কাছে খুবই গুরুত্বপূন । তাই আপনার মতামত দিন !!
if you like please share this postShare on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0