Ithelpbd.com is Bangla Online Tech Community website.

টেক-নিউজ

জানেন কি নোকিয়া মোবাইল কোম্পানীর আগে কিসের কোম্পানী ছিল কিংবা তাদের কোম্পানী লোগোই বা কেমন ছিল!?

জানেন কি নোকিয়া মোবাইল কোম্পানীর আগে কিসের কোম্পানী ছিল কিংবা তাদের কোম্পানী লোগোই বা কেমন ছিল!?

অন‌্যান‌্য, জেনে নিন, টেক-নিউজ, নোকিয়া
আসসালামু আলাইকুম সবাই কেমন আছেন ? আশা করি ভাল। আমার ৯৯তম টিউনে আপনাদের স্বাগতম। আজকের টিউনটা একটু সাদামাটা। কিন্তু বেশ তাৎপর্যপূর্ণ। টিউনটার হেডলাইন দেখেই বুঝতে পেরেছেন টিউনটা কিসের ওপর। হ্যা, আজকের টিউনটা করব নোকিয়া নেটওয়ার্ক এন্ড টেকনলজির লোগোর বিবর্তন এবং এই লোগোর কিছুটা ইতিহাস। নোকিয়া সর্বপ্রথম কাগজের কম্পানি হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয় ১৮৬৫ সালে। নামকরণ করা হয় কম্পানির পাশ দিয়ে অতিক্রম করা নদী থেকে। যাই হোক  আমি তো আর নোকিয়ার ইতিহাস নিয়ে আসিনি। আমি নোকিয়া লোগোর বিবর্তন এবং এই লোগোর পেছনের কিছুটা ইতিহাস নিয়ে টিউন করতে এসেছি। তো শুরু করি… ১৮৬৫-১৯৬৫ নোকিয়া প্রতিষ্টিত হওয়ার সময় তার নাম পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া নদীর নামে সাথে মিলে রেখে রাখা হয় এবং কম্পানিটির নাম রাখা হয় Nokia Osakeyhtiö। নদীর সাথে নামের মিল থাকায় নদীর মাছ তাদের লোগোতে ধুকে পরে😁। মানে তাদের লোগোতে মাছের মাথার চিহ্ন ব্যবহার করা হ
৬৪-বিট কম্পিউটিং কি? আপনার জন্য সত্যিই কতটা গুরুত্বপূর্ণ? ৬৪-বিট মানেই কি ৩২-বিট থেকে দ্বিগুণ কম্পিউটিং? – মেগাটিউন!

৬৪-বিট কম্পিউটিং কি? আপনার জন্য সত্যিই কতটা গুরুত্বপূর্ণ? ৬৪-বিট মানেই কি ৩২-বিট থেকে দ্বিগুণ কম্পিউটিং? – মেগাটিউন!

কম্পিউটিং, জেনে নিন, টেক-নিউজ, প্রতিবেদন
আজকের সকল মডার্ন কম্পিউটার গুলো ৬৪-বিট কম্পিউটিং সিস্টেম ব্যবহার করে; তার মানে কিন্তু এই নয় যে শুধু নাম্বার বড় হওয়ার কারণে এটি ৩২-বিট কম্পিউটিং থেকে দ্বিগুণ কাজ করতে পারে। এই “বিট” টার্মটি শুধু প্রসেসরের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হয়ে থাকে—কিন্তু একটি কম্পিউটারের কর্মদক্ষতা যাচায় করার জন্য এর সিপিইউ ক্লক স্পীড, মেমোরি, বিভিন্ন ড্রাইভার ইত্যাদি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। তাহলে ৬৪-বিট আসলে কি? এবং সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি হলো এটি আপনার জন্য কতটা গুরুত্ব রাখে? চলুন বিস্তারিত করে জেনে নেওয়া যাক… ৬৪-বিট কম্পিউটিং কি? কম্পিউটার সাধারনত কোন তথ্যকে বিট আকারে প্রসেস করে। বিট সাধারনত একটি বাইনারি ক্রম যা, জিরো অথবা ওয়ান হতে পারে। কম্পিউটার প্রসেসরে একসাথে অনেক ট্র্যানজিস্টর লাগানো থাকে, যেগুলো অন বা অফ করে জিরো বা ওয়ান সংরক্ষিত বা প্রসেস করানো হয়। অর্থাৎ টেকনিক্যালি আপনার কাছে যতোবেশি জিরো বা ওয়ান বা
শীঘ্রই আসছে উইন্ডোজের নতুন সংস্করণ ‘উইন্ডোজ ৯!

শীঘ্রই আসছে উইন্ডোজের নতুন সংস্করণ ‘উইন্ডোজ ৯!

টেক-নিউজ
উইন্ডোজ ৮.১ বাজার দখল করতে না করতেই পরবর্তী সংস্করণ ‘উইন্ডোজ ৯’ বাজারে নিয়ে আসতে যাচ্ছে নির্মাতা প্রতিষ্ঠান মাইক্রোসফট। জানা যায়, আগামী ২০১৫ সালের মাঝামাঝি সময়েই উইন্ডোজের নতুন এই সংস্করণটি বাজারে আসতে যাচ্ছে। অনলাইন বিভিন্ন গনমাধ্যমের সূত্রে জানা যায়, চলতি বছরেআর শেষের দিকে অথবা আগামী বছরের প্রথম প্রান্তিকেই উইন্ডোজ ৯ এর প্রিভিউ ভার্সন বাজারে আসার বেশ সম্ভাবনা রয়েছে। উইন্ডোজের এই সংস্করণটি মূলত ডেক্সটপ কম্পিউটার বা ল্যাপটপ ব্যবহারকারীদের সুবিধার কথা চিন্তা করেই বাজারে আনা হচ্ছে বলে জানা যায়। তবে ব্যবহারকারীদের জন্য কি কি ফিচার থাকছে নুতন এই ভার্সণটিতে, সেটি এখনও জানা যায়নি। নতুন এই সংস্করণটিতে আপগ্রেড করতে কোন সমস্যাই হবে না মাইক্রোসফট উইন্ডোজের পুরাতন ব্যবহারকারীদের। উইন্ডোজ ৮ ব্যবহারকারীরা তো বটেই এমনকি উইন্ডোজ ৭ ব্যবহারকারীরাও নতুন এই ভার্সণে ফ্রী আপগ্রেড করতে পারবেন বলে
এক্সপি’র পরে এবার বন্ধ হতে যাচ্ছে উইন্ডোজ ৭ এর সকল কার্যক্রম!

এক্সপি’র পরে এবার বন্ধ হতে যাচ্ছে উইন্ডোজ ৭ এর সকল কার্যক্রম!

টেক-নিউজ
  দীর্ঘ ১৩ বছর সফল যাত্রার পর গত ৮এপ্রিল বন্ধ করে দেয়া হয়, উইন্ডোজ এক্সপি’র সকল সেবা। এক্সপি বন্ধের পর যখন জনপ্রিয়তার শীর্ষে অবস্থান করছে উইন্ডোজ ৭, ঠিক তখনই এই সংস্করণটিও বন্ধ করে দেয়ার উদ্যোগ নিয়েছে মাইক্রোসফট। সম্প্রতি এক অনুষ্ঠানে, বর্তমানের জনপ্রিয় কম্পিউটার অপারেটিম সিস্টেম উইন্ডোজ ৭ এর সকল কার্যক্রম বন্ধ করে দেওয়ার ঘোষনা দেয় নির্মাতা প্রতিষ্ঠান মাইক্রোসফট। মূলত উইন্ডোজের পরবর্তী ভার্সনগুলো জনপ্রিয় করতে এরকম উদ্যোগ নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। এ প্রসঙ্গে মাইক্রোসফট কর্পোরেশন থেকে জানানো হয়েছে, আগামী  ১৩ জানুয়ারি ২০১৫ এর পর থেকে আনুষ্ঠানিক ভাবে বন্ধ করে দেওয়া হবে উইন্ডোজ ৭ এর সকল কার্যক্রম। এই একই পদ্ধতিতে ২০১৮ সালের ৯ জানুয়ারির পর উইন্ডোজ ৮ এবং ৮.১ সংস্করণের ভার্সনটি বন্ধ করে দেবে মাইক্রোসফট। উল্লেখ্য, এই একই সময়ে উইন্ডোজের নতুন ভার্সণগুলো বাজারে আসবে বলে জানিয়েছ
ফ্রিলান্সারদের জন্য সুখবর ভার্চুয়াল কার্ড চালু হচ্ছে বাংলাদেশে!

ফ্রিলান্সারদের জন্য সুখবর ভার্চুয়াল কার্ড চালু হচ্ছে বাংলাদেশে!

টেক-নিউজ
বাংলাদেশ থেকে সরাসরি অনলাইনে লেনদেনের সুযোগ না থাকায় মোবাইল অ্যাপ ডেভলপারস, ফ্রীল্যান্সার বা গেইম নির্মাণকারীদের আন্তর্জাতিক প্রযুক্তি বাজারের সাথে যুক্ত হওয়ার কোন সুযোগ ছিলনা। আর এই অসুবিধার কথা চিন্তার করেই প্রযুক্তি খাতকে আরো বেশি সমৃদ্ধশালী করতে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রচেষ্টায় ও বাংলাদেশ ব্যাংকের যৌথ উদ্যোগে বাংলাদেশে অনুমোদন পেল ভার্চুয়াল কার্ড। জুন ০২, ২০১৪ তারিখে বাংলাদেশ ব্যাংকের এক বিজ্ঞপ্তি থেকে জানা যায় যে ইন্টারনাশনাল চেম্বার অব কমার্স-এর অর্ন্তভূক্ত বাণিজ্যিক ব্যাংকসমূহ ব্যক্তিগত পর্যায়ে মোবাইল এ্যাপ্লিকেশন এবং গেম নির্মাণকারীদের আর্ন্তজাতিক ক্ষেত্রে অর্থ লেনদেনের জন্য ‘ভার্চুয়াল কার্ড’ ইস্যু করবার সুবিধা প্রদান করবে। এ কার্ড দিয়ে গুগল, আইটিউনস, ফায়ারফক্স, উইন্ডোজ, ব্ল্যাকবেরিসহ এ ধরণের আরও অন্যান্য মো
হারিয়ে গেলে স্বয়ংক্রিয়ভাবেই মেসেজ দিবে ‘স্মার্ট লাগেজ’!

হারিয়ে গেলে স্বয়ংক্রিয়ভাবেই মেসেজ দিবে ‘স্মার্ট লাগেজ’!

টেক-নিউজ
লাগেজ হারিয়ে গেলে নিজেই মালিকের স্মার্টফোনে মেসেজ পাঠিয়ে জানিয়ে দিবে নিজের অবস্থান। শুনতে অবিশ্বাস্য মনে হলেও এমন ঘটনাকে বাস্তব করেছেন  ইউরোপিয়ান বিমান নির্মাতা প্রতিষ্ঠান এয়ারবাস।  প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, শুধু নিজের অবস্থানই নয় এই ‘স্মার্ট লাগেজ’ জানাতে পারবে নিজের সঠিক ওজনও। ইউএস এয়ারলাইন্স এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, শুধুমাত্র গত এপ্রিলেই ইউএস এয়ারলাইন্স থেকে  ১ লাখ ৪১ হাজার ব্যাগ হারিয়েছে। তাই তাদের বিশ্বাস এই ‘স্মার্ট লাগেজ’ ব্যাবহারের ফলে দ্রুত কমে আসবে হারানো লাগেজের সংখ্যা। বার্তা সংস্থা সিএনএন জানায়, ইউরোপিয়ান বিমান নির্মাতা প্রতিষ্ঠান এয়ারবাস সম্প্রতি প্যারিস এয়ার শো’তে এই ‘স্মার্ট লাগেজ’ তৈরির কনসেপ্ট ডিজাইন তুলে ধরে। ‘ব্যাগ টু গো’-নামের ঐ কনসেপ্টে উঠে আসে এই স্মার্ট লাগেজের বিশেষত্ব সমূহ। প্রতিবেদনে আরো জানানো হয়, স্মার্টফোন অ্যাপের মাধ্যমে চিহ্নিত করা যাবে লাগেজগু
আসাধারন এবং চোখ ধাঁধানো সব ফিচার নিয়ে আসছে ফিফা ১৫ Game এর নতুন ভার্সন !

আসাধারন এবং চোখ ধাঁধানো সব ফিচার নিয়ে আসছে ফিফা ১৫ Game এর নতুন ভার্সন !

টেক-নিউজ
আগামী সেপ্টেম্বরেই  রিলিজ হতে যাচ্ছে ইএ স্পোর্টসের জনপ্রিয় গেইম ‘ফিফা’ সিরিজের সর্বশেষ সংস্করণ ফিফা ১৫। গেইমটিকে বাস্তবধর্মী করে তোলার সব ধরনের চেষ্টাই করেছে নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ইলেকট্রনিক আর্ট। গেইমটিতে যোগ করা হয়েছে নতুন সব ফিচার। খেলোয়ারদের ধাক্কাধাক্কি, গোল উদযাপন, দর্শকদের মাতামাতিসহ বিভিন্ন ধরনের ‘ইমোশন’যোগ করা হয়েছে ফিফা ১৫ তে। এ প্রসঙ্গে ব্রিটিশ দৈনিক গার্ডিয়ানের এক প্রতিবেদনে জানায়, ‘বাস্তবে মাঠে খেলোয়ারদের বিভিন্ন আচরণ এবার দেখা যাবে ফিফা ১৫ তেই। বাস্তবের মতই হাতাহাতি, বাজে ফাউলে আহত হওয়ার পর শারিরীক ভঙ্গি, গোল করার পর আনন্দ কিংবা গোল মিস হওয়ার হতাশা আরও স্পষ্টভাবে প্রকাশিত হবে।’ গেইমে নতুন ৬০০ মানসিক প্রতিক্রিয়া যোগ করা হয়েছে। ভিজ্যুয়ালে খুটিনাটি অনেক বিষয়ে লক্ষ করা হয়েছে। পরিবর্তন এসেছে খেলার মাঠের পরিবেশেও গ্যালারিকে করা হয়েছে লাইভ। পছন্দের দলের ভালো খেলায় উল্লাস প্রকাশ ক