Ithelpbd.com is Bangla Online Tech Community website.

উইন্ডোস

Ransomware-এর জন্য Patch File ছেড়েছে মাইক্রোসফট!! Patch File এখনই ডাউনলোড করে নিন!!

Ransomware-এর জন্য Patch File ছেড়েছে মাইক্রোসফট!! Patch File এখনই ডাউনলোড করে নিন!!

অ্যান্টিভাইরাস, উইন্ডোস, উইন্ডোস 7, উইন্ডোস 8, উইন্ডোস 8.1, উইন্ডোস এক্সপি, টিপস এন্ড ট্রিকস
র‌্যানসমওয়্যার (Ransomware) থেকে রক্ষা পেতে উইন্ডোজের(Windows) পুরোনো সংস্করণগুলোর জন্য একটি প্যাচ ছেড়েছে মাইক্রোসফট(Microsoft)। উইন্ডোজ এক্সপি, উইন্ডোজ সার্ভার ২০০৩(Windows Server 2003) এবং উইন্ডোজ ৮(Windows 8)-এর মতো পুরোনো অপারেটিং সিস্টেমের জন্য মাইক্রাসফট সাপোর্ট (Microsoft Support) বন্ধ রেখেছিল। এর আগে, যে ত্রুটি কাজে লাগিয়ে র‌্যানসমওয়্যার(Ransomware) ঘটানো হয়েছে মাইক্রোসফট প্যাচ(Microsoft Patch) ছেড়েছিল। কিন্তু এই সমাধানটি ছাড়া হয়েছিল কেবল নতুন অপারেটিং সিস্টেমের জন্য। আর তাই পুরোনো সিস্টেম ব্যবহারকারী এবং যারা নতুন সিস্টেমগুলো আপডেট করেনি কেবল তারাই মূলত ঝুঁকির মুখে রয়েছে। একটি কম্পিউটার আক্রান্ত হলে সেটি তখন লোকাল নেটওয়র্কে থাকা অন্যান্য যন্ত্রে ছড়ানোর পাশাপাশি ইন্টারনেটেও ছড়িয়ে পড়ে। যেসব কম্পিউটারে সার্ভার ম্যাসেজ(Server Message) বা ক্রটির বা প্যাচটি ইনস্টল করা হয়নি, র‌্যান
সাবধান আপনার কম্পিউটারকেও Ransomware ভাইরাসটি আক্রমণ করতে পারে। যার ফলে আপানাকে গুনতে হবে ৩০০ ডলার!!

সাবধান আপনার কম্পিউটারকেও Ransomware ভাইরাসটি আক্রমণ করতে পারে। যার ফলে আপানাকে গুনতে হবে ৩০০ ডলার!!

অ্যান্টিভাইরাস, ইন্টারনেট, উইন্ডোস, কম্পিউটিং, জেনে নিন, হ্যাকিং
কেমন আছেন সবাই? আশা করি ভালই আছেন। এখন আমাদের ভাল থাকা না  থাকাটা নির্ভর করে আমাদের কম্পিউটার ভাল আছে কিনা তার উপর। যদি কম্পিউটারের কিছু হয় তাইলে তো কথাই নেই মুড এর বারটা কি তেরটা পর্যন্ত বেজে যায় তাই আমরা সবসময় চেষ্টা করি যাতে আমাদের কম্পিউটারটি সবসময় ঠিকভাবে থাকে। কিন্তু অনেক সতর্কতার পরেও ভাইরাস ম্যালওয়ার আক্রমণ করেই থাকে। আমারা কম্পিউটার ভাইরাস বলতে বুঝি এমন সব প্রোগ্রাম যা কম্পিউটারের সাধারন কাজগুলোকে ঠিকভাবে করতে দেয় না। ইউজার এর বিভিন্ন সমস্যার কারণ হয়। কিন্তু আজকে আমি নতুন ধরনের ম্যালওয়ার নিয়ে কথা বলব। যারা ফেসবুক বা বিভিন্ন টেক ফোরামগুলোতে খোজ খবর রাখেন তারা হয়ত বুঝতে পারছেন আমি কি নিয়ে কথা বলতে যাচ্ছি। হা আমি Ransomware নিয়েই কথা বলব। Ransomware কি? Ransom অর্থ মুক্তিপণ। আরে ware হল ম্যালওয়ার এর ware, এর থেকেই বুঝাই যায় যে যে ম্যালওয়ার কোন কিছুর জন্য মুক্তিপণ চায় সেইগুলাই Ra
WINDOWS ১০ ফ্রীতে মাইক্রোসফট ডাউনলোড লিংক

WINDOWS ১০ ফ্রীতে মাইক্রোসফট ডাউনলোড লিংক

ইন্টারনেট, উইন্ডোস
আশা করি সবাই ভালই আছেন। গতকালের টিউনটি করার পর বুঝতে পারি যে অনেকের উইণ্ডোস ১০ ইনস্টল করতে গিয়া, হাজারো অসুবিধার সমুখীন হতে হযেছে। যেমন কারো ডাউনলোড সুরু হছিলো না।কারো বা ERROR ম্যাসেজ। কেউ প্রিভিউ ভার্সন, কেউ এন্টারপ্রাইস ভার্সন। আপগ্রেড আইকন টা টাস্কবার এ নেই। কারো কারো তো মনে হলো নাইবা করলাম উইণ্ডোস ১০ ইনস্টল। ইনস্টল নাইবা করলেন windows10 অরিজিনাল ISO সেভ করতে ক্ষতি কি ? তাও যদি ফ্রি এবং জেনুইন ভাবে পাওয়া তো কোনো ক্ষতি তো নেই। কাল কথা দিয়া ছিলাম আজ টিউন টা করে দেবো; সব প্রবলেম সলভ না হলেও সিংহ ভাগ যে সলভ হবে তা হলফ করে বলতে পারি  কিভাবে। নিয়া নিন WINDOWS ১০ ফ্রীতে মাইক্রোসফট ডাউনলোড লিংক WINDOWS ১০ কিভাবে ডাউনলোড এবং ডাউনলোড টা কে  কিভাবে সেভ করে রাখবেন দেখালাম ছবিতে স্টেপ বাই স্টেপ প্রথমে লিংক টা ওপেন করুন।  নিচের ছবির মতো ওয়েব পেজ  টা খুলবে Select 64 bit or 32
আপনার পিসির র‌্যামকে বানিয়ে ফেলুন হার্ডডিস্ক এবং নেট ব্রাউজিং করুন সুপার স্পিডে।

আপনার পিসির র‌্যামকে বানিয়ে ফেলুন হার্ডডিস্ক এবং নেট ব্রাউজিং করুন সুপার স্পিডে।

উইন্ডোস, টিপস এন্ড ট্রিকস
এতদিন আপনারা শুনেছেন যে হার্ডডিস্ক বা পেনড্রাইভকে র‌্যাম পরিণত করা যায়। কিন্তু হার্ডডিস্ক বা পেনড্রাইভকে আসলেই র‍্যাম হয় না, তবে Paging file হিসাবে ভার্চুয়াল মেমোরির কাজটুকু করে। অর্থাৎ র‌্যামকে আমরা হার্ডডিস্ক বানিয়ে নিতে পারি খুব সহজেই। আর কিভাবে এটার মাধ্যমে ক্যাশ ফাস্ট লোডিং করে দ্রুত নেট ব্রাউজিং করব তার ট্রিক্স জানতে পারবেন। RamDisk কেন ব্যবহার করবেন? মোটামুটি সবাই জানি, র‌্যাম একটি ভার্চুয়াল মেমোরি! এটিতে অস্থায়ী ভাবে ডাটা সংরক্ষণ করা যায়। রিস্টার্ট/শাটডাউন দিলে কোন তথ্যই সেভ থাকে না। এসব সাধারণ জ্ঞান ক্লাস টু-থ্রীর পড়া! আমরা এই  অস্থায়ী ভাবে ডাটা সংরক্ষণ ব্যবস্থাকে কাজে লাগিয়ে র‌্যামকে হার্ডডিস্ক বানিয়ে ফেলবো অর্থাৎ আপনার র‌্যামের কিছু অংশ দখল হয়ে ভার্চুয়াল ডিস্ক ড্রাইভ তৈরি হবে। এখন হয় তো কিছুটা বুঝলেন! আবার প্রশ্ন করতে পারেন, পিসিতে HHD/SSD  হার্ডডিস্ক তো আছেই, তাহলে এক্সট্
আপনার পিসিতে শর্টকাট ভাইরাস  ..তবে  বিদায় জানান টোরান ও শর্টকাট ভাইরাস!!! জেনে নিন আজই

আপনার পিসিতে শর্টকাট ভাইরাস ..তবে বিদায় জানান টোরান ও শর্টকাট ভাইরাস!!! জেনে নিন আজই

উইন্ডোস, টিপস এন্ড ট্রিকস
কেমন আছেন বন্ধুরা? আশা করি ভাল আছেন। আর যারা ভাল নেই দোয়া করব আল্লাহ যেন তাদেরকে তারাতারি সুস্থতা দান করেন। কম্পিউটার ব্যবহার করেন, আর শর্টকাট বা অটোরান ভাইরাসের কবলে পরেননি এমন কাউকে খুজে পাওয়া অসম্ভব।আপনারা হয়তবা অনেক ধরনের আন্টি ভাইরাস ব্যবহার করেন, কিন্তু আন্টি ভাইরাস এ এইসব ভাইরাস রিমুভ করা যায় না। আসলে এটি এক ধরনের লেটেন্ট (সুপ্ত) ভাইরাস।তাই অ্যান্টি ভাইরাস সফটওয়ার দিয়ে এইসব ভাইসাস রিমুভ করা সম্ভব হয় না। অনেকেই দেখা যায় তাদের কম্পিউটার এসব ভাইরাসে আওতাভুক্ত হলে চোখ বন্ধ করে উইন্ডোজ সেটআপ দেয়া ছাড়া আর কোন উপায় খুজে পান না।   আবার মাঝে মাঝে হয়তবা দেখেন, আপনার পেন্ড্রাইব এ অনেক ফাইল থাকলেও আপনি কোন ফাইল দেখছেন না। শুধু দেখতে পাচ্ছেন কিছু শর্টকাট ফাইল আপনার সামনে ভেসে উঠেছে। ঠিক তাদের জন্য আমার আজকের টিউন। এই শর্টকাট ভাইরাস রিমুভের জন্য লাগবে একটি সফটওয়ার। সফটওয়ারটির না
কিভাবে আপনার লেপটপ এবং কম্পিউটার দ্রুত চালাবেন মাউজ ছাড়া।

কিভাবে আপনার লেপটপ এবং কম্পিউটার দ্রুত চালাবেন মাউজ ছাড়া।

উইন্ডোস
কিভাবে আপনার লেপটপ এবং কম্পিউটার দ্রুত চালাবেন মাউজ চাড়া। কথাটা শুনে অনেকে হয়তো বলতেচেন কিভাবে এইটা সম্ভব?আসলে অনেক সহজ কিন্তু আমরা না জানার কারনে ভাবছি অনেক কঠিন। আচ্ছা,যাই হোক আসল কথায় যাই। আচ্ছা,যাই হোক আসল কথায় যাই।আপনারা শুধু আমার ডিরেকশনগুলো ফোলো করবেন।এবং আপনার keyboard এ apply করবেন।সবগুলো sign keyboard এ পাবেন।আমি এর আগে আরো কয়েকটা পোস্ট লিখেছিলাম,কিভাবে windows 7 and install দিতে হয়।আপনি ইচ্ছা করলে দেখতে পারেন। তাহলে দেখেন। ১ CTRL+C (Copy করার জন্য) ২ CTRL+X (Cutকরার জন্য) ৩ CTRL+V (Pasteকরার জন্য) ৪ CTRL+Z (Undoকরার জন্য) ৫ Delete (Deleteকরার জন্য) ৬ Shift+Delete (কোনো কিছু permanently Deleteকরার জন্য Recycle Bin এ ও থাকবেনা) ৭ CTRL (কোনো কিছু সেলেক্ট করে dragg করার জন্য ) ৮ F2 key (selected item Rename করার জন্য ) ৯ CTRL+RIGHT ARROW (শুরুর দিকে যাওয়ার জন্
এবার খুব সহজে পেন ড্রাইভ থেকেই উইন্ডোজ ইন্সটল করুন ।

এবার খুব সহজে পেন ড্রাইভ থেকেই উইন্ডোজ ইন্সটল করুন ।

উইন্ডোস
আমরা সাধারণত উইন্ডোজ ইন্সটল দিয়ে থাকি সিডি দিয়ে। এতে করে বেশ সময় লেগে যায়। কিন্তু আমরা যদি পেনড্রাইভ দিয়ে বুট করে উইন্ডোজ ইন্সটল দেই তাইলে আরো কম সময়ে আপনি উইন্ডোজ ইন্সটল দিতে পারবেন। এজন্য আপনাকে আপনার পেনড্রাইভকে প্রথমেই বুটেবল করে দিতে হবে। সেজন্য আপনি নীচের পদ্ধতি অনুসরণ করুনঃ * প্রথমে পেন-ড্রাইভটা NTFS এ ফরম্যাট করুন । এজন্য আপনি যদি উইন্ডোজ সেভেন ব্যাবহার করেন তাইলে শুধু ফরম্যাট দেয়ার সময় ঐখানে FAT32 এর বদলে NTFS দিয়ে ফরম্যাট করুন। ব্যাস কাজ শেষ। * আপনার ড্রাইভে উইন্ডোস ৭ বা এক্সপি এর ডিস্ক ঢুকান । * Programs থেকে Accesories এ যান । Command Prompt এ রাইট বাটন ক্লিক করে Run As Administrator হিসেবে চালান । * কমান্ড দিনঃ h: ( এখানে আপনার যে ড্রাইভে উইন্ডোসের ডিস্ক ঢুকিয়েছেন তার ড্রাইভ লেটার দিন ) cd h:\boot * ধরি পেন-ড্রাইভের ড্রাইভ লেটার J: , নীচের কমান্ড দিনঃ boots
১৫ টি ধাপে windows8 install করে নিন খুব সহজ !

১৫ টি ধাপে windows8 install করে নিন খুব সহজ !

উইন্ডোস
আসাসালামুআলাইকুম, আপনারা সবাই কেমন আছেন?আসা করি আল্লাহর রহমতে অনেক ভালো আছেন কয়েক দিন পর আজ আবার হটাত মনে পড়লো একটা গুরূত্বপূর্ণ বিষয়।অবশ্য গত কয় দিন আগে একটা পোস্ট লিখেছিলাম কি ভাবে উইন্ডোজ ৭ ইনসটল দিতে হয়।কিন্তু আজ উইন্ডোজ নিয়ে আরেকটা গুরুত্বপুর্ন পোস্ট লিখার চিন্তা করলাম,এটি সাধারনত সবাই লিখেননা।আর সেটি হলো আপনি কিভাবে নিজেই নিজের কমপিউটারে উইন্ডোজ ৮ সেট আপ দিবেন। কি দরকার এই প্রযুক্তির যুগে অন্যের পা ধরা বা কি দরকার শুধু শুধু ৫০০ টা টাকা দেওয়া আরেকজনকে।আপনি ইচ্ছা করলে নিজেই নিজের কাজটা শেষ করতে পারেন।আর এই সব জিনিশ কে সামনে রেখে আমার এই পোস্ট টি লেখা। আসা করি আপনারা আমার সাথে থাকবেন।আর ভালো না লাগলে দয়া করে গালি দিবেননা। এখন আসল কথায় যাওয়া যাক। আমি আপনাদের দেখাবো কি ভাবে windows 8 install দিতে হয় step by step.আমি এই পোস্টটি সম্পুর্ন ইংরেজিতে লিখেছিলাম tuneik এ।এখন আমি এইটা